হলিউড তারকাদের জো বাইডেনের প্রতি সমর্থন ।। Hollywood stars support Joe Biden

হলিউড তারকাদের জো বাইডেনের প্রতি সমর্থন
Hollywood stars support Joe Biden


Hollywood stars support Joe Biden
হলিউড তারকাদের জো বাইডেনের প্রতি সমর্থন
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে নির্বাচনী প্রচারণায় বিভিন্ন রূপ দেখা যাচ্ছে । রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি ডেমোক্রেট পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন কে হলিউড তারকাদের প্রকাশ্য সমর্থন নির্বাচনী প্রচারণার চিত্র আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে । জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী, সিনেমার অভিনেতা ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্বদের সমর্থন প্রার্থী জো বাইডেনকে অনেকটাই এগিয়ে রেখেছে নির্বাচনের ক্ষেত্রে । এরই মধ্যে গণমাধ্যমে হলিউড তারকারা বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করে বক্তব্য রেখেছেন ।

টেইলর সুইফট, ম্যাডোনা, কার্ডি বি, টম হ্যাঙ্কস, জর্জ ক্লুনির মত তারকারা তাদের ভক্তদের আহ্বান জানিয়েছেন ডেমোক্রেট পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনকে ভোট দেওয়ার জন্য । ফলোয়ার এর দিক থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে শীর্ষে রয়েছেন ডোয়াইন জনসন রক । ইনস্টাগ্রামে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে । ডোয়াইন জনসন রক- এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, জো বাইডেন এবং কমলা হ্যারিস দেশ পরিচালনার জন্য তার সেরা পছন্দ । টেইলর সুইফট এর ইনস্টাগ্রামের ১৪ কোটি ফলোয়ার এর কাছে জো বাইডেনের জন্য ভোট প্রার্থনা করেছেন ।

প্রচারণা কৌশলের কারনেও জো বাইডেন ভোটারদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন । অন্যদিকে প্রচারণার শেষ দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারণায় শুধু হাস্যরসাত্মক বক্তব্য ও ব্যক্তি আক্রমণ । ফ্লোরিডাতে ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাওয়ার পর দিনই গত মঙ্গলবার ফ্লোরিডায় ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছেন জো বাইডেন । করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যর্থ ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাজ করার ইচ্ছা নাই । তিনি মানুষের জীবন নিয়ে খেলছেন । ডোনাল্ড ট্রাম্প তার প্রেসিডেন্টের দায়িত্বের মতই লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করতে চেয়েছেন এবং এর ফলে ফ্লোরিডার বয়স্ক বাসিন্দা এবং সারা দেশের মানুষ পর্যাপ্ত ত্রাণ পায়নি ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ডেমোক্রেট দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষে নির্বাচনের আগে ভোটারদের সুসংহত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন । গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এক ভিডিওতে তিনি বলেন, এই নির্বাচনে যথেষ্ঠ ঝুঁকি রয়েছে । ইতিহাস দেখায় যে, আপনার এবং আপনার বন্ধুদের ভোট দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করার সহজ উপায় হল পরিকল্পনা করা । ভিডিওতে নির্বাচনের ব্যাটেল গ্রাউন্ড হিসাবে পরিচিত উইসকনসিন, পেনসিলভেনিয়া, ওহাইও এবং 24 টি অঙ্গরাজ্যের কথা উল্লেখ করা হয়েছে ।

বৈশ্বিক মহামারী করনা ভাইরাসের কারণে আগাম ভোটে উৎসাহী হয়ে উঠেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভোটাররা । ইউনিভার্সিটি অফ ফ্লোরিডার তথ্য অনুযায়ী, গত সোমবার রাত পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৪ লাখ ভোটার এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন । কিন্তু ২০১৬ সালের নির্বাচনে এই ভোটের সংখ্যা ছিল মাত্র ১৪ লাখ অর্থাৎ এবার তার থেকে কয়েক গুণ বেশি পড়েছে ডাক মাধ্যম ও আগাম ভোট । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকশন প্রোজেক্টের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালের মিনেসোটা, সাউথ ডাকোটা, ভারমন্ট, ভার্জিনিয়া এবং উইসকনসিন যে পরিমাণ ভোট পড়েছিল তার ২০ শতাংশ ভোট ইতিমধ্যে পড়েছে ।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নির্বাচনকে ঘিরে সারা বিশ্বজুড়ে এক ধরনের উত্তাপ বয়ে চলেছে । ঠিক এই সময় ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শতায়েহ এক মন্তব্যে বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প আবার নির্বাচিত হলে তা সমগ্র বিশ্ব এর পাশাপাশি ফিলিস্তিনিদের জন্য সর্বনাশ ডেকে আনবে । গত মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের পার্লামেন্টে সদস্যদের সঙ্গে বৈঠককালে মোহাম্মদ শতায়েহ বলেছেন, ট্রাম্প প্রশাসনের গত চার বছরে ফিলিস্তিনিদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে । 

ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী  মোহাম্মদ শতায়েহ আরো বলেন, আমরা যদি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে আরো চার বছর বসবাস করতে চাই তাহলে সৃষ্টিকর্তা আমাদের সাহায্য করবেন । সৃষ্টিকর্তা ফিলিস্তিনি জনগণকে এবং পুরো বিশ্বকে সহায়তা করবেন । মার্কিন ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনের দিকে ইঙ্গিত করে ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শতায়েহ বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যদি কোন পরিবর্তন ঘটে, তাহলে সেটিও সরাসরি ফিলিস্তিন-ইসরাইলি সম্পর্কের ক্ষেত্রে এর প্রতিফলন ঘটবে । এর প্রতিফলন ঘটবে ফিলিস্তিন-আমেরিকান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কেও

আরও পড়ুন: চুমু দেবো আমার সব সমর্থককে : ট্রাম্প ।। I will kiss all my supporters: Trump

No comments

Please do not enter any spam link in the comment box.

Powered by Blogger.