তুরস্কের আয়া সফিয়া মসজিদে ৮৬ বছর পর জুমার নামাজ আদায়


তুরস্কের আয়া সফিয়া মসজিদে ৮৬ বছর পর জুমার নামাজ আদায়

তুরস্কের আয়া সফিয়া মসজিদে ৮৬ বছর পর জুমার নামাজ
তুরস্কের আয়া সফিয়া মসজিদে জুমার নামাজ আদায়

তুরস্কের ঐতিহ্যবাহী আয়া সফিয়া সফিয়া মসজিদে ৮৬ বছর পর আবারও জুমার নামাজ আদায় করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা । কয়েক হাজার মানুষ এই নামাজ আদয়ে অংশগ্রহন করেন । এ সময় অনেকে মুল মসজিদে জায়গা না পেয়ে প্রাঙ্গন সহ আশপাশের রাস্তায় নামাজ আদায় করেন । করোনা সংক্রমণ রোধে কঠোরভাবে মানা হয় সামাজিক দুরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি । বিবিসি নিউজ ।

এই ইতিহাসের সাক্ষী হতে আয়া সোফিয়া মসজিদে নামাজে উপস্থিত ছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান । নামাজের আগে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয় । এর আগে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট । সুমধুর কন্ঠে তেলাওয়াত করেন সুরা ফাতিহা এবং সুরা বাকারার কিছু অংশ ।

উল্লেখ্য, ৫৩৭ সালে আয়া সোফিয়া নির্মিত হয় । ইস্তাম্বুল বিজয়ের আগ পর্যন্ত ৯১৬ বছর আয়া সোফিয়া গির্জা ছিল । ১৪৫৩ সালের ১ লা জুন মসজিদে রুপান্তরিত আয়া সোফিয়া প্রথমবারের মতো জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয় । ১৪৫৩ থেকে ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত ৫০০ বছর মসজিদ ছিল । ১৯৩৪ সালে আয়া সোফিয়াকে জাদুঘর বানানোর জন্য ডিক্রি জারি করে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট কামাল আতাতুর্ক এর মন্ত্রিসভা । গেল বছর এক নির্বাচনী সভায় জাদুঘর থেকে আয়া সোফিয়াকে মসজিদে ফেরানোর ঘোষণা দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট । তিনি বলেন, আয়া সোফিয়াকে জাদুঘর বানানো মস্তবড় ভুল ছিল । প্রেসিডেন্টের ঘোষনার বিরোধিতা করে আদালতে মামলা করে একটি বেসরকারি সংস্থা । শুনানি শেষে ১০ জুলাই তুরস্কের আদালত মামলা খারিজের পাশাপাশি আতাতুর্ক সরকারের সেই ডিক্রি বাতিল করে । রায় দেন মসজিদে ফিরিয়ে আনার পক্ষে । যার মাধ্যমে আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রুপান্তরের সুযোগ তৈরি হয় । ওইদিনই আয়া সোফিকে  মসজিদে রূপান্তরের পুনঃ ঘোষনা দেন এরদোগান । জাদুঘরে রুপ দেওয়ার আগে ৫০০ বছর স্থাপনাটি মসজিদ ছিল । ফলে ৮৬ বছর পর আয়া সোফিয়ায় আবার নামাজ আদায়ের সুযোগ পেলেন মুসলমানরা ।

১৯৮৫ সালে জাদুঘর থাকাকালে আয়া সোফিয়াকে বিশ্বঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করে ইউনেস্কো । দেশ-বিদেশি পর্যটকদের জন্য তুরস্কের সর্বাধিক দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে আয়া সোফিয়া অন্যতম । ১৬ জুলাই তুরস্কের ধর্মবিষয়ক অধিদপ্তর মসজিদ রুপান্তরিত হওয়ার পরে আয়া সোফিয়া পরিচালানার জন্য সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের সঙ্গে একটি সহযোগিতা প্রোটোকল স্বাক্ষর করে । প্রোটকলের অধীনে সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রনালয় পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষনের কাজ তদারকি করবে । মূল্যবান এ স্থাপনাটি উন্মুক্ত থাকবে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য ।।

আরও পড়ুন : ঈদুল আযহা আত্মত্যাগের মহান উদাহরন

Post a Comment

Please do not enter any spam link in the comment box.

Previous Post Next Post